বাংলাদেশ, বৃহস্পতিবার, ৯ জুলাই ২০২০ ২৫শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সাতকানিয়ায় করোনা শনাক্ত দুইজনকে জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ


প্রকাশের সময় :13 April, 2020 1:15 : PM

মোঃ সেলিম (সাতকানিয়া প্রতিনিধি):

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় নতুনভাবে করোনা শনাক্ত হওয়া দুইজনকে চিকিৎসার জন্য আজ সোমবার (১৩ এপ্রিল) সকালে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

গত শনিবার দুপুরে সাতকানিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পক্ষ থেকে পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের গাটিয়া পাড়ার এক যুবক ও ৮নং ওয়ার্ডের শামচৌধুরী পাড়ায় ভাড়া বাসায় থাকা এক কিশোরের নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

ফৌজদারহাটে অবস্থিত বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অভ ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেজ (বিআইটিআইডি) হতে গত রবিবার রাতে তাদের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট প্রদান করা হয়। রিপোর্টে তাদের দুইজনের শরীরে করোনার সংক্রমণ পাওয়ার পর তাদের ২ পরিবারসহ মোট ২৩টি পরিবারকে লকডাউন করা হয়েছে।

সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নূর এ আলম, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আবদুল মজিদ ওসমানী, সাতকানিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক মো. সফিউল কবীর ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ করোনা শনাক্ত হওয়া ব্যক্তিদের বাড়িতে গিয়ে লোকজনের সাথে কথা বলার পর এসব পরিবারগুলোকে লকডাউন ঘোষণা দিয়ে লাল পতাকা টাঙিয়ে দেন।

এর আগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এক ব্যবসায়ীর মৃত্যুর পর তার পরিবার, আত্মীয়-স্বজন এবং দাফন-কাফনের সাথে সংশ্লিষ্টদের সাথে সংস্পর্শে থাকা ৪০০টি পরিবারকে লকডাউন করা হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র মতে, নতুনভাবে করোনা শনাক্ত হওয়া দুইজনের পরিবার ও তাদের সংস্পর্শে থাকা লোকজনকে চিহ্নিত করে পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের গাটিয়া পাড়া এলাকায় ১৭টি পরিবার এবং ৮নং ওয়ার্ডের শামচৌধুরী পাড়ায় ৬ পরিবারকে লকডাউন করা হয়েছে। লকডাউনকৃত ২৩ পরিবারের মধ্যে ১১৩ জন সদস্য রয়েছে।

সাতকানিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আবদুল মজিদ ওসমানী জানান, নতুনভাবে করোনা শনাক্ত হওয়া দুইজনকে চিকিৎসার জন্য এ্যাম্বুলেন্সযোগে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। আর তাদের দুই পরিবারসহ ২৩টি পরিবারকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নূর এ আলম বলেন, ‘করোনা শনাক্ত হওয়া দুইজনের সাথে কথা বলেছি। তারা এখনো তুলনামূলক সুস্থ রয়েছে। তাদেরকে চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া তাদের সংস্পর্শে আসা লোকজনকে চিহ্নিত করে ২৩টি পরিবারকে লকডাউন করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এসব পরিবারকে বাইরে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। আশপাশের লোকজনকেও লকডাউন করা বাড়িতে না যাওয়ার জন্য বলা হয়েছে।’

ট্যাগ :