বাংলাদেশ, শনিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২১ ৯ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম

‘জনগণ ভালবেসে আমাকে নির্বাচিত করেছে ; এখন আমার মানুষের ভালবাসার প্রতিদান দেয়ার পালা’–এম এ মোতালেব সিআইপি


প্রকাশের সময় :১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২:৪৮ : অপরাহ্ণ

মোঃ সেলিম (সাতকানিয়া প্রতিনিধি):

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার নব নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ মোতালেব সিআইপি বলেছেন, জনগণের ভালবাসায় আমি অভিভূত। নির্বাচনে মানুুষ দিনরাত পরিশ্রম করে আমার প্রতি যে ভালবাসা দেখিয়েছে তা আমি সারাজীবন মনে রাখবো। সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে চেয়ারম্যান হতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত। এখন আমার মানুষের ভালবাসার প্রতিদান দেয়ার পালা। আমার জীবনের বাকি সময়টুকু মানুষের কল্যাণে উৎসর্গ করতে চাই। একাত্তর বাংলা নিউজকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষক থেকে শিল্পপতি, এখন উপজেলা চেয়ারম্যান। কিভাবে উপভোগ করছেন জানতে চাইলে এমএ মোতালেব বলেন, শিক্ষকতা দিয়ে জীবন শুরু করেছিলাম। পরে অনুভব করলাম জীবনে প্রতিষ্ঠিত হতে অন্য কিছু করতে হবে। অনেক চিন্তা ভাবনা করে ব্যবসা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। সততা ও কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে আমি ব্যবসায় সফলতা পেয়েছি। আমার ব্যবসার পরিধি এখন দেশের সীমানা পেরিয়ে বিদেশে ছড়িয়ে পড়েছে। আমার বনফুল ও কিষোয়ান গ্রুপে বিপুল সংখ্যক লোকের কর্মসংস্থান হয়েছে। ব্যবসায় সফলতার পর শুরু করি জনগণের সেবা । লাভের একটা অংশ মানুষের কল্যাণে ব্যয় করি। এলাকায় অসহায় মানুষের বাসস্থানের ব্যবস্থা, স্কুল, কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসাসহ এলাকার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সহায়তা প্রদান, প্রাকৃতিক দুর্যোগে মানুষের পাশে দাঁড়ানোসহ মানব কল্যাণে কাজ শুরু করি। ব্যক্তিগত অর্থায়নে অনেক রাস্তাঘাট, কালভার্ট ও ব্রিজ নির্মাণ করি। এসব কাজ করতে গিয়ে মানুষের ভালবাসায় অনুপ্রাণিত হয়েছি। এখন সরকারি বরাদ্দের পাশাপাশি ব্যক্তিগত অর্থায়নে মানব কল্যাণে আরো বেশি কাজ করতে পারবো।

মানুষের সেবা করার সুযোগ করে দেয়ার জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি দলীয় নেতাকর্মীসহ সকলকে ধন্যবাদ জানান। মানুষের প্রত্যাশা পুরণ করে উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে সফল হওয়াই আমার লক্ষ্য।

উপজেলা চেয়ারম্যান মোতালেব জানান, চট্টগ্রাম-১৫ আসনের সাংসদ ড. আবু রেজা নদভী ও চট্টগ্রাম-১৪ আসনের সাংসদ নজরুল ইসলাম চৌধুরীর সহযোগিতা নিয়ে সাতকানিয়াকে মাদক, সন্ত্রাস ও শোষণমুক্ত জনপদ হিসেবে গড়ে তুলবো।

এম এ মোতালেব বলেন, রাস্তা-ঘাটের উন্নয়ন, সাতকানিয়া সরকারি কলেজে মাস্টার্স কোর্স চালুর পাশাপাশি অনার্সের সাবজেক্ট বৃদ্ধি, কারিগরি কলেজ স্থাপন করে কর্মমুখী শিক্ষার মাধ্যমে দক্ষ জনবল গড়ে তোলা, সাতকানিয়ার কেরানীহাট এলাকায় যানজট নিরসনে ফ্লাইওভার নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হবে। শঙ্খ, ডলুনদীর ভাঙ্গন রোধে বাঁধ নির্মাণ, সাতকানিয়ায় ইন্ডাস্ট্রিয়াল জোন করে কারখানা স্থাপনের মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টি, এলাকার মসজিদ, মাদ্রাসা, শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন, সাতকানিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে আধুনিকায়ন ও শয্যা সংখ্যা বৃদ্ধি, বনভূমি সংরক্ষণ, ইকোপার্ক নির্মাণ, ফসল সংরক্ষণে সংরক্ষণাগার নির্মাণ, দুস্থ মুক্তিযোদ্ধাদের পুনর্বাসনে প্রকল্প গ্রহণ, মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণ, গৃহহীনদের জন্য বাসস্থান ও সাইক্লোন সেন্টার নির্মাণসহ সাতকানিয়াকে মডেল উপজেলায় রূপান্তরিত করা হবে।
এম এ মোতালেব বলেন, ছোট বেলায় স্বপ্ন ছিল ডাক্তার হওয়ার। কিন্তু জীববিজ্ঞান ও পদার্থ বিজ্ঞানে নম্বর কম পাওয়ায় ডাক্তার বা প্রকৌশলী হওয়ার স্বপ্ন পূরণ হয়নি। তখন সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম লেখাপড়া শেষ করে সরকারি কর্মকর্তা হবো। কিন্তু নানা বাধা বিপত্তির কারণে তাও হয়ে উঠেনি। বিএসসি পরীক্ষা শেষে শিক্ষকতা শুরু করি। এরপর ব্যবসায় সফল হওয়ায় মানব সেবার সুযোগ তৈরি হয়। সেবামূলক কাজের আত্মতৃপ্তি থেকেই এখন উপজেলা চেয়ারম্যান। আগামীতে সাতকানিয়ার বড় সমস্যাগুলো সমাধানে এলাকার বিত্তশালীদের সম্পৃক্ত করা হবে।
সাতকানিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ মোতালেব বলেন, আমি সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে দলকে সংগঠিত করতে অনেক পরিশ্রম করেছি। আগামীতে দলকে আরো বেশি শক্তিশালী করতে কাজ করবো। উপজেলা চেয়ারম্যানের দায়িত্ব সুষ্ঠুভাবে পালনের চেষ্টা করবো। সংসদ নির্বাচন নিয়ে আমার কোন মাথা ব্যথা নেই। তবে আমার কাজে সন্তুষ্ট হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যদি কখনো সংসদ নির্বাচনের জন্য আমাকে যোগ্য মনে করেন তাহলে সংসদ নির্বাচন করবো।

ট্যাগ :