বাংলাদেশ, সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১ ৬ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

আগামী দুয়েক দিনের মধ্যেই আসছে শৈত্যপ্রবাহ!!


প্রকাশের সময় :১৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ৬:৫৬ : পূর্বাহ্ণ

এম.এইচ মুরাদ:

আগামী দুয়েকদিনের মধ্যে দেশের উত্তর–পশ্চিমাঞ্চলে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে বলে ধারণা করছে আবহাওয়া অধিদফতর। সেই সঙ্গে সারাদেশের তাপমাত্রা আরও কমতে পারে বলেও মনে করছেন তারা।

জানা যায়, কোনও অঞ্চলের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা যদি ৮ থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকে তাহলে তাকে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বলা হয়, এরপর ৬ থেকে ৮ ডিগ্রি হলে মাঝারি এবং যদি তাপমাত্রা ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে যায় তাকে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বলা হয়।

মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেতুলিয়ায় ১২ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৭ দশমিক ৬, ময়মনসিংহে ১৪ দশমিক ৬, চট্টগ্রামে ১৭ দশমিক ৩, সিলেটে ১৫ দশমিক ৪, রাজশাহীতে ১৪ দশমিক ৩, রংপুরে ১৩, খুলনায় ১৭ দশমিক ৪ এবং বরিশালে ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।বি

আবহাওয়াবিদ হাফিজুর রহমান বলেন, শীতের এই সময়ে তাপমাত্রা কমে যেতে শুরু করে। এরইমধ্যে কমতে শুরুও করেছে। তাপমাত্রা আরও কমে যেতে পারে।

তিনি বলেন, তাপমাত্রা কমে গিয়ে দেশের সব অঞ্চলে নয়, বিশেষ করে উত্তরাঞ্চলে শৈত্যপ্রবাহ দুই একদিনের মধ্যেই শুরু হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের পশ্চিমাঞ্চলেও কিছুটা শৈত্যপ্রবাহ হতে পারে। এছাড়া অন্য এলাকার তাপমাত্রা কমবে।

আবহাওয়ার অধিদফতর জানায়, উপ-মহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ বিহার ও এর আশেপাশের এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। যার বর্ধিতাংশ উত্তর পূর্ব বঙ্গোপাসগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, আকাশ আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকবে। শেষরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। তাপমাত্রা রাতে এক থেকে দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস কমে যেতে পারে।

এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তরেরর দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে বলা হয়, ডিসেম্বর মাসে প্রথমার্ধে রাতের তাপমাত্রা স্বাভাবিক অপেক্ষা বেশি থাকতে পারে কিন্তু মাসের শেষার্ধে রাতের তাপমাত্রা স্বাভাবিক অপেক্ষা কম থাকতে পারে। এ মাসের শেষার্ধে দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে ১ থেকে ২টি মৃদু (৮ থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস) অথবা মাঝারি (৬ থেকে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস) শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

ট্যাগ :