বাংলাদেশ, বুধবার, ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

লন্ডনে বসে দেশ চালানোর সুযোগ নেই : ভূমিমন্ত্রী জাবেদ


প্রকাশের সময় :৩ ডিসেম্বর, ২০২২ ৩:১১ : অপরাহ্ণ

স্টাফ রিপোর্টারঃ

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ইঙ্গিত করে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপি বলেছেন, লন্ডনে বসে চালানোর সুযোগ নেই।

তিনি বলেন, বিএনপি খোলা মাঠে জনসভা করতে চায়। তাদের সোহরাওয়ার্দী উদ্যান দিলে হবে না; তাদের নাকি পল্টনে জনসভা করার সুযোগ দিতে হবে। পল্টন ময়দানে কেন তাদের জনসভা করতে হবে? পারলে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে করে দেখান। তারা কি মনে করেছে- লন্ডনে বসে দেশ চালাবে? লন্ডনে বসে দেশ চালানোর সুযোগ নেই। আপনাদের চিন্তার কোনো কারণ নেই। দেশ সঠিক মানুষের হাতেই আছে। প্রধানমন্ত্রীর হাতে দেশ নিরাপদ না হলে, কারও হাতে নিরাপদ নয়।

আজ শনিবার (৩ ডিসেম্বর) দুপুরে অ্যাপোলো ইম্পেরিয়াল হাসপাতালের আনুষ্ঠানিক যাত্রা উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, গত ১৪ বছরে দেশে ধাপে ধাপে উন্নয়ন হয়েছে৷ এ উন্নয়ন আবার অনেকের সহ্য হচ্ছে না। বিশেষ করে করোনার সময় টিকার জন্য সরকার বিলিয়ন ডলার ইনভেস্ট করেছে। অনেক দেশ যেখানে টিকা পায়নি, সেখানে বিনামূল্যে টিকা পেয়েছে আমাদের দেশের সাধারণ মানুষ।

ভূমিমন্ত্রী বলেন, ১৯৯৬ সালে কমিউনিটি ক্লিনিক চালু করা হয়েছিল। কিন্তু ২০০১ সালে বিএনপি সরকার ক্ষমতায় এসে কমিউনিটি ক্লিনিক বন্ধ করে দেয়। অনেক বছর এটি বাক্সবন্দি ছিল। পরে ২০০৯ সালে আবার এ সেবা চালু হয়। এখন ফ্যাশন হয়ে গেছে, সর্দি-কাশি হলে ডাক্তারের কাছে চলে যাই। সামান্য পেট ব্যথায় আমরা সিঙ্গাপুর চলে যাই। কিন্তু সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করতে হবে। তারা যেন ভালো চিকিৎসা সেবা পায়। অ্যাপোলোর সঙ্গে চুক্তি করার ফলে এই হাসপাতালের সেবার মান আরও বাড়বে বলে আমার বিশ্বাস।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, দেশের মানুষের মাথাপিছু জিডিপি বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে দেশে বিনিয়োগ বেড়েছে। মানুষের জীবনযাত্রার মানও বৃদ্ধি পেয়েছে। এখন মানুষ স্বাস্থ্যসেবার জন্যও খরচ করতে চায়। অ্যাপোলোর সঙ্গে ইম্পেরিয়াল হাসপাতালের চুক্তি হওয়ায় দেশে স্বাস্থ্যসেবার মান বাড়বে। টেকসই স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে পরিবেশের পাশাপাশি সেবার মানের উন্নয়ন দরকার। যার সবকিছুই এ হাসপাতালে আছে। ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে নার্সিং কলেজের পাশাপাশি মেডিক্যাল কলেজ স্থাপন করা হলে সেবা নিতে আসা রোগীরা আরও ভালো সেবা পাবে।

অনুষ্ঠানে অ্যাপোলো ইম্পেরিয়াল হাসপাতালের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. রবিউল হোসেন আমন্ত্রিত অতিথিদের স্বাগত জানান। পরে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন ভারতের অ্যাপোলো হাসপাতালের চেয়ারম্যান ডা. প্রতাপ কুমার রেড্ডি ও কো-চেয়ারম্যান ডা. প্রীতা রেড্ডি।

দৈনিক আজাদীর সম্পাদক এম এ মালেকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন একুশে পদকপ্রাপ্ত সাংবাদিক আবুল মোমেন, চট্টগ্রাম চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি মাহবুবুল আলম।

ট্যাগ :