বাংলাদেশ, শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ ৩রা আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বিয়ের আগে ছাত্রলীগের পদ ছেড়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন চট্টগ্রামের ছেলে তানিম মান্নান


প্রকাশের সময় :4 September, 2020 1:37 : PM

স্টাফ রিপোর্টার:

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্রে বিবাহিত কেউ সংগঠনের পদে থাকতে পারবেনা মর্মে সুস্পষ্ট নির্দেশনা উল্লেখ থাকলেও দেশের বিভিন্ন পর্যায়ে ছাত্রলীগের পদে থাকা অনেক নেতা বিবাহিত হওয়ার পরেও দলীয় পদ আগলে রাখতে দেখা যায়৷ খোদ চট্টগ্রাম মহানগর ও দক্ষিন জেলা ছাত্রলীগের নেতাদের অনেককে প্রকাশ্য স্ত্রী-সন্তান নিয়ে সংসার জীবন পার করলেও ছাত্রলীগের পদ আকড়ে ধরে থাকতে দেখা যায়৷

তবে এবার ব্যতিক্রম নজির গড়লের চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি তানিম মান্নান। দাম্পত্য জীবন শুরুর আগে জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি পদ থেকে স্বেচ্ছায় অব্যাহতি নিয়েছেন তানিম।

গত ২ আগস্ট কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক বরাবরে ছাত্রলীগের পদ থেকে অব্যাহতির আবেদন করেন তানিম মান্নান৷ গতকাল ৩ আগস্ট কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক নিজ আবেদনের প্রেক্ষিতে সংগঠন থেকে অব্যাহতি দেন৷

আজ খবরটি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রচার হলে ব্যাপক সাড়া ফেলে৷ তানিম মান্নানের অনুসারি ও বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখালেও সবাই এমন নজির স্থাপন করায় সকলেই অভিনন্দন জানাচ্ছেন তানিমকে৷

জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১৪ অক্টোবরে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের আংশিক কমিটি ঘোষনা হয় । তানিম মান্নান সেই কমিটির সহ-সভাপতি পদে নির্বাচিত হন। তবে, ছাত্রলীগের সাংগঠনিক নিয়মে এর মেয়াদ ১বছর হলেও ২০২০ সালের ৪ মার্চ তারিখে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা হয়।

এই বিষয়ে তানিম মান্নানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের একজন দ্বায়িত্বশীল নেতা হিসেবে সংগঠনের গঠনতন্ত্রের প্রতি শ্রদ্ধাশীল৷ আমি গত মার্চ মাসেই অব্যাহতি নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তবে করোনা মহামারি কারণে আনুষ্ঠিক ভাবে ঘোষনা দেয়া হয়নি৷ শীঘ্রই আমি পারিবারিকভাবে দাম্পত্য জীবন শুরু করতে যাচ্ছি।তাই ছাত্রলীগের অনুজদের ভবিষ্যতের কথা ভেবে এবং দলের নিয়ম-নীতির উপর শ্রদ্ধা রেখে স্বেচ্ছায় অব্যহতির জন্য কেন্দ্রে আবেদন করি।এবং কেন্দ্রীয় সভাপতি-সাধারন সম্পাদক আবেদনটি গ্রহণ করেন এবং অব্যবহিতর অনুমতি প্রদান করেছে।”

আরেকটি প্রশ্নের জবাবে তানিম বলেন, “ছাত্রলীগের সদস্য হওয়াটাও অনেক গৌরবের৷ আমি পারিবারিক ভাবেই জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বেড়ে উঠেছি৷ আমাকে সংগঠন মুল্যায়ন করেছে তাই আমি সহ-সভাপতির দ্বায়িত্ব পেয়েছি৷ পদে না থাকলেও জননেত্রীর পেছনেই আমৃত্যু কাজ করে যাবো৷’

ট্যাগ :