বাংলাদেশ, শনিবার, ৪ জুলাই ২০২০ ২০শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

প্রচণ্ড কনকনে শীত, তবুও ইজতেমার কাজ থামাননি মুসল্লিরা!!


প্রকাশের সময় :19 December, 2019 4:28 : PM

স্টাফ রিপোর্টার:

টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে এগিছে চলছে ২০২০ সালের বিশ্ব ইজতেমার সকল প্রস্তুতি। আসন্ন ইজতেমা উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (১৯ ডিসেম্বর) কনকনে প্রচণ্ড শীতের মধ্যেই স্বেচ্ছায় কাজ করছে মুসল্লিরা। প্রতিদিন সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত বিভিন্ন জেলা থেকে আসা মুসল্লিরা ময়দান প্রস্তুত কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন। আগত মুসল্লিরা ময়দানে মাটিকাটা, ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার, খুঁটি গাথা, সামিয়ানা তৈরি, চট বাধাই, বয়ান মঞ্চ, বিদেশীদের কামরা নির্মাণসহ বিভিন্ন কাজ করছে।

মুসুল্লিরা বলেন, যতই শীত আসুক ময়দানের কাজ বন্ধ নেই। কনকনে শীত উপেক্ষা করে কাজ করছে মুসল্লিরা। আল্লাহর কাজ করতে এসে যত মেহনত হবে, ততই সোয়াব হবে। আল্লাহকে পেতে চাইলে একটু কষ্ট করতেই হবে, আর আল্লাহর জন্য কষ্ট করলে আল্লাহ তায়ালা রাজি খুশি হয়ে যাবেন। সেই আশায় মুসল্লিরা কনকনে শীত উপক্ষো করে ময়দানে কাজ করছে। উল্লেখ্য, আগামী ১০ জানুয়ারি শুক্রবার থেকে শুরু হবে ৫৫তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। ১২ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে তা শেষ হবে। এরপর ৪ দিন বিরতি দিয়ে দ্বিতীয় পর্ব ১৭ জানুয়ারি শুরু হয়ে ১৯ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্যে দিয়ে শেষ হবে দ্বিতীয় পর্ব। গতবারের ন্যায় এবারও প্রথম পর্বে মাওলানা জোবায়ের পন্থী মুসল্লিরা টঙ্গী ময়দানে ইজতেমার আয়োজন করবে। এরপর মাঝে চারদিন বিরতি দ্বিতীয় পর্বে মাওলানা সা’দ এর অনুসারীরা ইজতেমা আয়োজন করবে।

ময়দানের মুরব্বি ও মাওলানা জোবায়ের অনুসারী ডা. কাজী সাহাবুদ্দিন বলেন, বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে ময়দানের সকল কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। ইতোমধ্যে ওলামা মাশায়েক আলমীসুরার বিদেশী মেহমান সৌদি আরব, মালয়েশিয়া, রাশিয়ারসহ বিভিন্ন দেশের মুসল্লিরা বাংলাদেশে অবস্থান নিয়ে দিনের দাওয়াতি কাজ করছেন। তবে ইজতেমা সফল করতে গাজীপুর সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলম ও স্থানীয় এমপি যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল সক্রিয় ভূমিকায় রয়েছেন। সিটি মেয়র বলেন, এবারও বিশ্ব ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের সেবায় সিটি কর্পোরেশন এর পক্ষ থেকে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ময়দানে বালি ফেলা, ময়লা আবর্জনা পরিষ্কারসহ বিভিন্ন কাজ করছে সিটি কর্পোরেশন। এছাড়া আমি নিজে প্রতিদিন ময়দানে কাজের খোঁজ-খবর রাখছি।

ট্যাগ :